যুক্তরাষ্ট্রের ওপর প্রতিশোধ নেয়ার হুমকি ইরানের আলি খামেনির

ইরানের বিপ্লবি গার্ডের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেমানি মার্কিন হামলায় নিহত হওয়ার ঘটনায় আমেরিকার ওপর তীব্র প্রতিশোধ নেওয়ার হুঁশিয়ারি জানিয়েছেন ইরানের সর্ব্বোচ্চ নেতা আয়াতোল্লাহ আলি খামেনি।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, আজ (শুক্রবার) সোলেমানি হত্যার ঘটনায় প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে এ হুঁশিয়ারি জানান তিনি। আয়াতোল্লাহ আলি খামেনি জানান, ‘সোলেমানি শহীদ হলেও তার কাজ বন্ধ থাকবে না।কিন্তু যারা নিজেদের হাতে সোলেমানি ও অন্য শহীদদের রক্ত লাগিয়েছে তারা যেন তীব্র প্রতিশোধের অপেক্ষায় থাকে।

তিন জানান, ‘শহীদ সোলেমানি প্র্রতিরোধ সংগ্রামের এক মহান চরিত্র। প্রতিরোধ আন্দোলনে নিবেদিত সবাই এখন সোলেমানির (মৃত্যুর) প্রতিশোধ গ্রহণকারী। সোলেমানির মৃত্যু আমেরিকান সাম্রাজ্যবাদ প্রতিহত করতে ইরানকে আরও বেশি দৃঢ় করবে। ইরান ও এ অঞ্চলের মুক্তিকামী অন্য দেশগুলো সোলেমানি হত্যার প্রতিশোধ নেবে এতে সন্দেহ নেই। তার এ অন্যায্য হত্যার মধ্য দিয়ে আমাদের প্রতিরোধ আন্দোলনের মাত্রা আরও দ্বিগুণ হবে।

এছাড়া ‘সব বন্ধু ও শত্রুদের জানা দরকার, এখন থেকে প্রতিরোধ সংগ্রাম আরও তরান্বিত হবে। আমাদের নিঃস্বার্থ ও প্রিয় জেনারেলের মৃত্যু অবশ্যই বেদনার, কিন্তু আমাদের চূড়ান্ত বিজয় খুনিদের জন্য হবে আরও বেদনার।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী আমির হাতামি, ইরানি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর সাবেক কমান্ডার মোহসেন রেজায়িসহ ইরানের উর্ধ্বতন পর্যায়ের বিভিন্ন নেতা সোলেমানি হত্যায় আমেরিকাকে চড়া মূল্য দিতে হবে বলে হুঁশিয়ারি জানিয়েছেন।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) রাতে ইরাকের বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন হামলায় নিহত হন কাসেম সোলেমানি। পেন্টাগন নিশ্চিত করে জানান, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে কাসেম সোলেমানিকে হত্যা করা হয়েছে।

সোলেমানি বর্তমান ইরান সাম্রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। তার নেতৃত্বে চলা কুদস ফোর্স সরাসরি দেশটির সুপ্রিম লিডার আয়াতোল্লাহ আলি খামেনির প্রতি অনুগত। তাকে ইরানে জাতীয় বীরের মর্যাদা দেওয়া হতো। কাশেম সোলেমানি নিহত হওয়ার ঘটনায় ইরান মার্কিনিদের পাল্টা জবাব দেবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।